Quick কুইজ প্রতিযোগিতা Quick কুইজ প্রতিযোগিতা Quick কুইজ প্রতিযোগিতা আজকেই অংশগ্রহণ এবং মূল্যবান পুরস্কার অর্জন করুন। নূন্যতম প্রাইজ ( 100 SR ) 100 সৌদি রিয়াল ।     সম্মানিত দর্শক, শ্রতা ও পাঠকগণ, আপনারাদের সুবিধার জন্য ওয়েব সাইটের মূল প্যাজে ভিডিও অপশান বাড়ানো হলো। এখন খেকে আপনারা শতাধিক ভিডিও থেকে প্রয়োজন অনুসারে নিজ পছন্নমত বিষয় নির্বাচন করে দেখতে পারবেন।     সম্মানিত দর্শক ও শ্রতাগণ, আপনাদেরকে সবিনয় অনুরোধ করা যাছে যে, আপনারা আপনাদের যে কোন গঠনমূলক সমালোচনা ও সুপরামর্শ জানিয়ে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে ভুলবেন না। আপনাদের সুপরামর্শের জন্য আপনাদেরকে অনেক অনেক ধন্যবাদ ।    
  • দর্শক কাউন্টার

    Flag Counter

     


    যিলহজ মাসের প্রথম দশকের গুরুত্ব ও তাত্পর্য فضائل عشر ذي الحجة





    যিলহজ মাসের প্রথম দশকের

    গুরুত্ব ও তাৎপর্য

    فضائل عشر ذي الحجة

    ১. আল্লাহ তাআলার বাণী:

    {وَالْفَجْرِ (1) وَلَيَالٍ عَشْرٍ (2) وَالشَّفْعِ وَالْوَتْرِ } [الفجر: 1 - 3]

     শপথ ফজরের সময়ের, শপথ দশ রাত্রির এবং শপথ তার, যা জোড় ও যা বেজোড়। [সূরা ফাজর:১-৩]

        ইবনে কাছীর (রহ:) বলেন: দশ রাত্রি অর্থাত্ যিলহজ মাসের প্রথম দশ রাত। যেমনটি বলেছেন ইবনে আব্বাস,ইবনে জুবাইর,মুজাহিদ ও অন্যান্যরা। আর জোড় অর্থ কুরবানির দিন এবং বেজোড় অর্থ আরাফাতের দিন। [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম]

    [তফসির ইবনে কাসীর তাহকীকসহ: ১২১/৪০ ]

    ২. আল্লাহ তাআলার আরো বাণী:

    {وَيَذْكُرُوا اسْمَ اللَّهِ فِي أَيَّامٍ مَعْلُومَاتٍ} [الحج: 28]

     আর যেন তারা নির্দিষ্ট দিনসমূহে আল্লাহর জিকির করে। [সূরা হাজ্ব: ২৮]

        ইবনে আব্বাস [রা:] বলেন: নির্দিষ্ট দিন বলতে যিলহজ মাসের প্রথম দশ দিন বুঝানো হয়েছে।

    [তফসির ইবনে কাসীর তাহকীকসহ:৭৭/১৮]

     

    عن ابن عباس قال قال رسول الله صلى الله عليه و سلم : (( ما من أيام العمل الصالح فيها أحب إلى الله من هذه الأيام يعني أيام العشر قالوا يا رسول الله ولا الجهاد في سبيل الله قال ولا الجهاد في سبيل الله إلا رجل خرج بنفسه وماله فلم يرجع من ذلك بشيء)) ( صحيح ) صحيح أبي داود رقم : 2130 (2/ 462)

     

    ৩. ইবনে আব্বাস [রা:] হতে বর্ণিত তিনি বলেন: রসূলুল্লাহ [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম] বলেন: যিলহজ মাসের প্রথম দশ দিনের সত্ আমল আল্লাহর নিকট অন্যান্য দিনের চেয়ে বেশী প্রিয়। সাহাবা কেরাম জিজ্ঞেস করলেন: আল্লাহর পথে জেহাদের চেয়েও হে আল্লাহর রসূল? তিনি বললেন: আল্লাহর পথে জেহাদের চেয়েও। তবে ঐ ব্যক্তি ব্যতীত যে তাঁর জানমালসহ বের হল অত:পর তা হতে কিছুই ফিরে আসল না। [সহীহ আবু দাঊদ:2130 (2/462)]

     

    عَنْ ابْنِ عُمَرَ عَنْ النَّبِيِّ صَلَّى اللَّهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ: (( مَا مِنْ أَيَّامٍ أَعْظَمُ عِنْدَ اللَّهِ وَلَا أَحَبُّ إِلَيْهِ الْعَمَلُ فِيهِنَّ مِنْ هَذِهِ الْأَيَّامِ الْعَشْرِ، فَأَكْثِرُوا فِيهِنَّ مِنْ التَّهْلِيلِ، وَالتَّكْبِيرِ، وَالتَّحْمِيدِ)) . رواه أحمد. 

     

    ৪. ইবনে উমার [রা:] হতে বর্ণিত,নবী [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম] বলেছেন:  এই দশ দিনের সত আমলের চেয়ে আল্লাহর নিকট মহান ও প্রিয় আর কিছুই নেই। অতএব, সেই (দশকে) বেশী বেশী করে লা ইলাহা ইল্লাল্লাহ, আল্লাহু আকবার, আলহামদু লিল্লাহ পড়বে। [আহমাদ, শাইখ আলবানী (রহ:) হাদীসটির কোন কোন সদন হাসান বলেছেন]

     ৫. ইবনে আব্বাস [রা:]-এর হাদীস বর্ণনাকারী সাঈদ ইবনে জুবাইর (রহ:) যিলহজের দশ দিন প্রবেশ করলে এতই বেশী বেশী ইবাদতে প্ররিশ্রম করতেন যা তাঁর শক্তির বাইরে হয়ে যেত। [দারেমী,হাদীসটি হাসান]

     ৬. ইবনে হাজার আসকালানী (রহ:) বলেন: যিলহজের দশ দিনের বৈশিষ্টের করণ হচ্ছে: ঐ দিনগুলোতে মৌলিক ইবাদতসমূহের সমন্বয় ঘটে। আর তা হলো সালাত, রোজা, দান-খয়রাত, হজ্ব ও কুরবানি ইত্যাদি যেগুলো অন্য কোন সময় একত্রিত হয় না। [ফাতহুলবারী: ৩/৩৯০]